জালালুদ্দিন রুমি, ওমর খৈয়ামের মত বিখ্যাত সুফি কবিদের কথা আমরা সকলেই জানি। নারীদের মধ্যেও বেশ কয়েকজন নামকরা সুফি কবি রয়েছেন। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষই তাদের সম্পর্কে কিছুই জানেন না। এরকম একজন বিখ্যাত সুফি কবি হলেন আয়েশা বিনতে ইউসুফ আল-বাউনিয়া।      

তিনি আয়েশা আল-বাউনিয়া নামেই সবচেয়ে বেশি পরিচিত। পঞ্চদশ শতাব্দীর সুফি কবি, লেখক এবং ইসলামি পন্ডিত ছিলেন তিনি। ১৪৬০ সালে সিরিয়ার দামেস্কে জন্মেছিলেন এই কবি। মাত্র ৮ বছর বয়সেই কোরআন শরীফ মুখস্থ করেছিলেন তিনি।

ইসলামি আইনশাস্ত্রে উচ্চশিক্ষার জন্য তিনি মিশরের কায়রো যান। তিনি সার্টিফিকেট পাওয়া মুফতি ছিলেন।  

আয়েশা ৩০ টির মত বই এবং এবং অসংখ্য কবিতা লিখেছিলেন। এগুলোতে তার চিন্তাভাবনার প্রতিফলন দেখা যায়। তার বেশিরভাগ বই ছিল সুফিবাদ নিয়ে।  

তার বিখ্যাত কাজ ‘আল-ফাতহ আল-মুবিন ফি মাদহ আল-আমিন’ ( ক্লিয়ার ইন্সপিরেশন, অন প্রেইজ অব দ্য ট্রাস্টেড ওয়ান)। এটি মহানবী হজরত মোহাম্মদ (সা.) কে প্রশংসা করে লেখা ১৩০টি কবিতার সংকলন।  

তিনি আরবি ভাষাতেই লেখালেখি করতেন। একুশ শতকে তার কিছু কাজ ইংরেজিতে অনুবাদ করা হয়েছে। সুফিবাদ নিয়ে লেখা তার পান্ডুলিপি ইংরেজিতে অনুবাদ করেছেন মার্কিন শিক্ষাবিদ টিএইচ. এমিল হোমরিন। বইটির নাম ‘দ্য প্রিন্সিপালস অব সুফিজম’।    

এই বইতে আয়েশা ভালোবাসা, অনুতাপ, স্মরণ , আন্তরিকতা এই ৪ মূলনীতির উপর ভিত্তি করে তার দর্শনের রূপরেখা বর্ণনা করেছেন।  

মধ্যুযুগের যে কয়েকজন নারী সুফি তাদের নিজস্ব মতামত লিখিতভাবে লিপিবদ্ধ করেছিলেন আয়েশা তাদের অন্যতম ছিলেন। ১৫১৭ সালে মারা যান মহান এই সুফি কবি।

সূত্র: এমভিএসএলআইএম.কম

Leave a Reply