প্রচন্ড ঠান্ডা এবং করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বেড়ে যাওয়া সত্ত্বেও মিশরে চলছে কায়রো আন্তর্জাতিক বইমেলা।  

‘মিশরের পরিচয়: সংস্কৃতি এবং ভবিষ্যতের স্বপ্ন’ এই স্লোগান নিয়ে ২৭ জানুয়ারি ৫৩ তম কায়রো আন্তর্জাতিক বইমেলা শুরু হয়েছে। এটি ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত চলবে।  

আরব দেশসহ ৫০টির বেশি দেশ থেকে ১ হাজারের বেশি প্রকাশনী সংস্থা কায়রো বইমেলায় অংশ নিয়েছে। এটি মিশরের সবচেয়ে জনপ্রিয় বার্ষিক ইভেন্টগুলোর একটি। প্রতি বছর লাখ লাখ দর্শনার্থী এই মেলায় আসেন।    

করোনাভাইরাসের কারণে সতর্কতামূলক ব্যবস্থার কঠোর বাস্তবায়ন সত্ত্বেও চলতি বইমেলা বিপুল সংখ্যক বইপ্রেমীদের আকর্ষণ করেছে। মেলার প্রথম দিনেই ৯১ হাজার দর্শক এসেছেন বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা।

এবারের কায়রো বইমেলার অতিথি দেশ গ্রিস। চলতি বছর পার্সোনালিটি অব দ্য ফেয়ার হিসেবে প্রয়াত মিশরীয় লেখক ইয়াহিয়া হাক্কিকে বেছে নেয়া হয়েছে। হলোগ্রাম প্রযুক্তির সাহায্যে দর্শকদের সামনে তাকে উপস্থাপন করা হচ্ছে।  

কায়রো আন্তর্জাতিক বইমেলা ১৯৬৯ সালে প্রথম শুরু হয়। এটি মধ্যপ্রাচ্যের বৃহত্তম এবং প্রাচীনতম মেলা হিসেবে বিবেচিত হয়।

সূত্র: দ্য ন্যাশনাল, ইজিপ্ট ইনডেপেনডেন্ট    

Leave a Reply