অমর একুশে বইমেলার শুভ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বাংলা একাডেমির জনসংযোগ উপবিভাগ থেকে দেয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।  

মঙ্গলবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৩টায় প্রধান অতিথি হিসেবে গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি একুশে বইমেলা-২০২২ এর শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন তিনি।

অনুষ্ঠানে রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যার নেতৃত্বে সাংস্কৃতিক সংগঠন সুরের ধারার শিল্পীদের সমবেত কণ্ঠে জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। এছাড়া আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারি পরিবেশনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মূল অনুষ্ঠান।   

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন একাডেমির মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নূরুল হুদা। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আবুল মনসুর। প্রকাশক প্রতিনিধি হিসেবে বক্তব্য দেন বাংলাদেশ পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির সভাপতি আরিফ হোসেন ছোটন।

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির সভাপতি কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন।   

বইমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০২১ দেয়া হয়।

এবারের পুরস্কারপ্রাপ্তরা হলেন, কবিতা-আসাদ মান্নান ও বিমল গুহ, কথাসাহিত্য-ঝর্না রহমান ও বিশ্বজিৎ চৌধুরী, প্রবন্ধ/গবেষণা-হোসেনউদ্দীন হোসেন, অনুবাদ-আমিনুর রহমান ও রফিক-উম-মুনীর চৌধুরী, নাটক-সাধনা আহমেদ, শিশুসাহিত্য-রফিকুর রশীদ, মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক গবেষণা-পান্না কায়সার, বঙ্গবন্ধু-বিষয়ক গবেষণা হারুন-অর-রশিদ, বিজ্ঞান/কল্পবিজ্ঞান/পরিবেশ বিজ্ঞান-শুভাগত চৌধুরী, আত্মজীবনী/স্মৃতিকথা/ভ্রমণকাহিনী-সুফিয়া খাতুন ও হায়দার আকবর খান রনো, ফোকলোর আমিনুর রহমান সুলতান।

প্রধানমন্ত্রীর পক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ অনুষ্ঠানে পুরস্কারপ্রাপ্ত লেখক এবং অনুপস্থিত তিনজন লেখকের প্রতিনিধির হাতে তিন লাখ টাকার চেক, ক্রেস্ট ও সম্মাননাপত্র তুলে দেন।

Leave a Reply