ইন্টারন্যাশনাল বুকার প্রাইজ-২০২২ এর দীর্ঘ তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। প্রাথমিক এই তালিকায় ১৩ জন লেখকের বই বেছে নেয়া হয়েছে।  

বৃহস্পতিবার (১০ মার্চ) বুকার প্রাইজের ফেসবুক পেজে ১৩ জন লেখক, অনুবাদক এবং তাদের বইয়ের নাম প্রকাশ করা হয়।

এবারে ইন্টারন্যাশনাল বুকার প্রাইজের জন্য ১৩৫ টি বই জমা পড়েছিল। এর মধ্যে থেকে ১৩টি বই বেছে নিয়েছেন বিচারকরা। এবারই প্রথম হিন্দি ভাষার একটি বই প্রাথমিক তালিকায় স্থান করে নিয়েছে।   

এবারের দীর্ঘ তালিকায় নোবেলজয়ী ওলগা তোকারচুকের ‘দ্য বুকস অব জ্যাকব’ উপন্যাসটি স্থান করে নিয়েছে। পোলিশ ভাষা থেকে বইটি অনুবাদ করেছেন জেনিফার ক্রফট। তোকারচুক এর আগেও একবার ইন্টারন্যাশনাল বুকার প্রাইজ পেয়েছিলেন।

ইসরায়েলি লেখক ডেভিড গ্রসম্যানের ‘মোর দ্যান আই লাভ মাই লাইফ’ উপন্যাসটিও ইন্টারন্যাশনাল বুকারের দীর্ঘ তালিকায় স্থান পেয়েছে। এটি অনুবাদ করেছেন জেসিকা কোহেন। এই লেখক-অনুবাদক জুটি  ২০১৭ সালেও মর্যাদাবান এই পুরস্কারটি  পেয়েছিলেন।

ভারতীয় লেখক গীতাঞ্জলি শ্রী এর উপন্যাস ‘টুম্ব অব স্যান্ড’ও রয়েছে এই দীর্ঘ তালিকায়। হিন্দি থেকে বইটি ইংরেজিতে অনুবাদ করেছেন ডেইজি রকওয়েল। এই প্রথম একজন হিন্দি ভাষার লেখক ইন্টারন্যাশনাল বুকারের প্রাথমিক তালিকায় মনোনয়ন পান।    

এছাড়াও চলতি বছরের ইন্টারন্যাশনাল বুকারের দীর্ঘ তালিকায় রয়েছে, ডেনিশ লেখক জোনা আইকার ‘আফটার দ্য সান’, অনুবাদক শেরিলিন নিকোলেট হেলবার্গ; ভায়োলেইন হুইসম্যানের ‘দ্য বুক অব মাদার’, অনুবাদ করেছেন লেসলি ক্যামহি; মিয়েকো কাওয়াকামির ‘হ্যাভেন’, এটি অনুবাদ করেছেন স্যামুয়েল বেট এবং ডেভিড বয়েড; পাওলো স্কটের ‘ফেনোটাইপস’, অনুবাদ করেছেন ড্যানিয়েল হান।  

বিশ্বের বিভিন্ন ভাষায় লেখা উপন্যাসের ইংরেজি অনুবাদকে  ইন্টারন্যাশনাল বুকার প্রাইজ দেয়া হয়। এক্ষেত্রে বিজয়ী লেখক এবং অনুবাদক উভয়েই পুরস্কারের অর্থ ভাগাভাগি করে নেন।

ইন্টারন্যাশনাল বুকার প্রাইজের সংক্ষিপ্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে ৭ এপ্রিল। ২৬ মে লন্ডনে একটি অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ২০২২ সালের বিজয়ী লেখকের নাম ঘোষণা করা হবে।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

Leave a Reply