উপন্যাস পড়তে আমরা সকলেই ভালোবাসি। কিন্তু বর্তমানে এই কর্মব্যস্ত সময়ে বড় বড় উপন্যাস পড়ে শেষ করে ফেলা সহজ বিষয় নয়। কিন্তু তাই বলে কি উপন্যাস পড়া বাদ দিবেন? অবশ্যই না। এক্ষেত্রে ছোট উপন্যাস পড়া যেতে পারে। ফিকশন ফ্যাক্টরির পাঠকদের জন্য এমন ৫টি ছোট উপন্যাসের নাম দেয়া হলো যা একদিনেই পড়ে শেষ করা যাবে।

১. মেমোরিজ অব মাই মেলানকোলি হোরস

এই নভেলাটি লিখেছেন নোবেলজয়ী লেখক গ্যাব্রিয়েল গার্সিয়া মার্কেজ। স্প্যানিশ ভাষায় লেখা বইটি ২০০৪ সালে প্রথম প্রকাশিত হয়। ২০০৫ সালে এটির ইংরেজি অনুবাদ প্রকাশিত হয়। এটি অনুবাদ করেন এডিথ গ্রসম্যান।

এই বইয়ের কেন্দ্রীয় চরিত্র একজন বৃদ্ধ সাংবাদিক যিনি সবেমাত্র তার ৯০তম জন্মদিন পালন করেছেন। তিনি ১৪ বছর বয়সি একজন যৌনকর্মীর কাছে যান। নিজের পরিবারকে সাহায্য করার জন্য কিশোরী মেয়েটি তার কুমারীত্ব বিক্রি করতে বাধ্য হয়। কিন্তু সেক্সের পরিবর্তে জীবনে প্রথমবার প্রেম আবিষ্কার করেন সাংবাদিক।

২. হোম

এই উপন্যাসটি লিখেছেন নোবেলজয়ী মার্কিন লেখক টনি মরিসন। এটি তার লেখা ১০ম উপন্যাস। এতে ফ্র্যাঙ্ক মানি নামের ২৪ বছর বয়সি আফ্রিকান-আমেরিকান একজন সৈনিকের গল্প বলা হয়েছে। কোরিয়ার যুদ্ধে অংশ নেয়া এই সৈনিকের বাড়ি ফিরে আসার কাহিনি উপন্যাসটিতে বর্ণনা করা হয়েছে।

৩. অ্যানিমেল ফার্ম

বিখ্যাত এই বইটি লিখেছেন ব্রিটিশ উপন্যাসিক জর্জ অরওয়েল। এটি একটি রূপকধর্মী, ব্যঙ্গাত্মক নভেলা। এখানে কাল্পনিক একটি খামারের গল্প বলেছেন লেখক। এই খামারের প্রাণীরা একদিন তাদের নিষ্ঠুর মালিকের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে। এরপর তারা এমন একটি সমাজ প্রতিষ্ঠা করে, যেখানে সব প্রাণী সমান অধিকার নিয়ে বাঁচতে পারে।

৪. থিংস ফল অ্যাপার্ট

এটি নাইজেরিয়ার লেখক চিনুয়া আচেবের প্রথম উপন্যাস। বইটি ১৯৫৮ সালে প্রথম প্রকাশিত হয়। এতে নাইজেরিয়ার দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের ইগবো সম্প্রদায়ের প্রাক-উপনিবেশিক জীবন তুলে ধরা হয়েছে। এছাড়া উনবিংশ শতাব্দীর শেষভাবে এই অঞ্চলে ইউরোপীয় উপনিবেশিকতার প্রভাবও বর্ণনা করা হয়েছে।

৫. দ্য সেন্স অব অ্যান এন্ডিং

বুকারজয়ী ইংরেজ লেখক জুলিয়ান বার্নসের লেখা উপন্যাস দ্য সেন্স অব অ্যান এন্ডিং। ২০১১ সালে প্রকাশিত বইটি একই বছর বুকার প্রাইজ জয় করেছে। এটি বার্নসের নিজের নামে লেখা ১১তম উপন্যাস।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

Leave a Reply