হলিউড তারকা উইল স্মিথ বর্তমানে বিশ্বজুড়ে আলোচনার কেন্দ্রে রয়েছেন। অস্কারের ৯৪তম আসরে কমেডিয়ান ক্রিস রককে চড় মেরে আলোড়ন ফেলে দেন তিনি। এবারের অস্কারের সেরা অভিনেতার পুরস্কারও পেয়েছেন তিনি। বিখ্যাত এই র‍্যাপার, অভিনেতা কিন্তু আগ্রহী পাঠকও। তার জীবনকে বদলে দিয়েছে এবং তাকে অনুপ্রাণিত করেছে এরকম কয়েকটি বইয়ের কথা তিনি বিভিন্ন সময়ে উল্লেখ করেছেন। আসুন এক নজরে বইগুলোর নাম দেখে নেয়া যাক।   

১. দ্য আলকেমিস্ট

উইল স্মিথের জীবনে সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলেছে পাওলো কোয়েলহোর বিখ্যাত উপন্যাস ‘দ্য আলকেমিস্ট’। স্মিথের মতে, ব্রাজিলিয়ান লেখকের এই বইতে সমগ্র মহাবিশ্বের কথা বলা হয়েছে। এটি তার প্রিয় একটি বই।

২. আউটলায়ার্স

‘আউটলায়ার্স: দ্য স্টোরি অব সাকসেস’ বইটি লিখেছেন ইংরেজ বংশোদ্ভূত কানাডিয়ান সাংবাদিক, লেখক ম্যালকম গ্ল্যাডওয়েল। এটি তার লেখা তৃতীয় নন-ফিকশন বই। উচ্চস্তরের সাফল্যে অবদান রাখে এমন কারণগুলি এই বইতে খুঁজে বের করেছেন তিনি।

মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস কীভাবে তার সম্পদ অর্জন করেছেন, কীভাবে বিটলস মানব ইতিহাসের সবচেয়ে সফলতম ব্যান্ডগুলোর একটিতে পরিণত হয়েছিল তা অনুসন্ধান করেছেন তিনি।

৩. রিচ ড্যাড পুয়োর ড্যাড

রবার্ট কিয়োসাকি এবং শ্যারন লেকটারের লেখা বই ‘রিচ ড্যাড পুয়োর ড্যাড’। আর্থিক সাক্ষরতা, আর্থিক স্বাধীনতার গুরুত্ব এবং সম্পদে বিনিয়োগের মাধ্যমে ধনসম্পদ গড়ে তোলার বিষয়ে গুরুত্ব দেয়া হয়েছে এই বইতে।

উইল স্মিথ এক সাক্ষাতকারে বলেছেন, রিচ ড্যাড পুয়োর ড্যাড পড়ে তিনি নিজের ছেলেকে আর্থিক দায়িত্ব সম্পর্কে শিক্ষা দিয়েছিলেন।

৪. হোয়েন থিংস ফল এপার্ট  

‘হোয়েন থিংস ফল এপার্ট: হার্ট এডভাইস ফর ডিফিকাল্ট টাইমস’ বইটি লিখেছেন আমেরিকান তিব্বতি বৌদ্ধ সন্ন্যাসীনি পেমা চোড্রন। মানুষের জীবনে এমন কিছু সময় আসে, যখন মনে হয় সবকিছু শেষ হয়ে গিয়েছে। এরকম কঠিন সময়ে কীভাবে জীবনযাপন করা যাবে তার পরামর্শ দিয়েছেন পেমা চোড্রন। দুঃখ-কষ্টকে স্বাভাবিকভাবে গ্রহণ করে জীবনকে কীভাবে আনন্দময় করে তোলা যায় এই বইতে তা বর্ণনা করেছেন তিনি।

সূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

Leave a Reply