থাইরয়েড ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়েছেন কবি ইমতিয়াজ মাহমুদ। আগামীকাল শুক্রবার (১ এপ্রিল) ভারতের চেন্নাইয়ে তার শরীরে অস্ত্রোপচার করা হবে।  

বৃহস্পতিবার (৩১ মার্চ) ফেসবুকে দেয়া এক স্ট্যাটাসে কবি নিজেই এই তথ্য প্রকাশ করেছেন।

তিনি লিখেন, ‘ক্যান্সারের বিষয়টা ডাক্তার নিশ্চিত করেছেন। কাল সার্জারি।’

এর আগের দিন তিনি এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা করে ফেসবুকে আরেকটি স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন। ফিকশন ফ্যাক্টরির পাঠকদের জন্য তার সেই স্ট্যাটাসটি নীচে দেয়া হলো।  

‘চেন্নাই ডাক্তার দেখাতে এসেছিলাম তিন মাস আগে।

নানা ধরনের জটিলতা ছিলো। ফুসফুস, হার্ট ইত্যাদি বিষয়ক। এর বাইরে মাইনর একটা সমস্যা ছিলো, কণ্ঠস্বরে। কয়েক বছর ধরেই কথা বলতে সমস্যা হচ্ছিলো।

ভাবছিলাম, কথা না বলতে না বলতে হয়তো এমন হয়েছে। এক সপ্তাহ আগে সিটি স্ক্যান থেকে জানা গেলো থাইরয়েডের সমস্যা। তারা বায়োপসি করতে দিলো। রিপোর্টে ক্যান্সারের আশঙ্কা; সার্জারির পরামর্শ।

পুনশ্চ ১ : আমি অতীতে দেখেছি, যেকোনো খারাপ খবর গোপন রাখলেও কীভাবে যেন তা রঙচঙ মেখে ছড়িয়ে পড়ে। এই পোস্টটা মূলত সেই অভিজ্ঞতা থেকেই দেয়া। বাড়তি রঙ যাতে না ছড়ায়।

পুনশ্চ ২ : এই অসুখ বিষয়ে দয়া করে কেউ মেসেঞ্জারে নক করবেন না। তেমন কিছু জানানোর মনে করলে আমি জানাবো।’

এদিকে কবির শরীরে ক্যানসার শনাক্ত হওয়ায় সমসাময়িক কবি, সাহিত্যিক এবং তার অসংখ্য ভক্ত ব্যথিত হয়েছেন। তারা ফেসবুকে কবির সুস্থতা কামনা করে পোস্টও দিয়েছেন।

কবি ইমতিয়াজ মাহমুদ ১৯৮০ সালের ২৪ ফেব্রুয়ারি ঝালকাঠি জেলায় জন্মগ্রহণ করেন । তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেছেন। এএফপির বাংলা বিভাগে সাব-এডিটর পদে কাজ করার পর সিভিল সার্ভিসের প্রশাসন ক্যাডারে যোগ দেন তিনি।  

তার প্রকাশিত বইগুলো হলো, ম্যাক্সিম (২০১৬), কালো কৌতুক (২০১৬), পেন্টাকল (২০১৫), নদীর চোখে পানি ও অন্যান্য কোয়াটরেন (২০১৩), মানুষ দেখতে কেমন (২০১০), সার্কাসের সঙ (২০০৮), মৃত্যুর জন্মদাতা (২০০২), অন্ধকারের রোদ্দুরে (২০০০)।

পেন্টাকল কাব্যগ্রন্থের জন্য তিনি কলকাতা থেকে কৃত্তিবাস পুরস্কার পেয়েছেন।   

Leave a Reply