স্বেচ্ছায় নোবেল প্রাইজ প্রত্যাখ্যানকারী একমাত্র লেখক জাঁ পল সার্ত্রে। লেখকদের আনুষ্ঠানিক সম্মাননা গ্রহণ করা উচিত নয় বলে তিনি এই পুরস্কার গ্রহণে অপারগতা জানিয়েছিলেন।

ফরাসি এই লেখককে ১৯৬৪ সালে সাহিত্যে নোবেল প্রাইজ দেয়া হয়। কিন্তু সার্ত্রে জানান, তিনি সবসময় অফিসিয়াল সম্মান প্রত্যাখান করে এসেছেন, ফলে তার পক্ষে এটি গ্রহণ করা সম্ভব নয়।

এটি নোবেল পুরস্কারের ইতিহাসে বেশ অস্বাভাবিক একটি ঘটনা ছিল। এর আগে শুধুমাত্র একবার সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী লেখক এটি প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। তিনি ছিলেন রুশ কবি, উপন্যাসিক বরিস পাস্তেরনাক।

১৯৫৮ সালে সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী হিসেবে পাস্তেরনাকের নাম ঘোষণা করা হয়। তিনি প্রথমে পুরস্কারটি গ্রহণ করার কথা জানিয়েছিলেন। কিন্তু পরে সোভিয়েত ইউনিয়নের শাসক গোষ্ঠীর নির্দেশে তিনি এটি প্রত্যাখ্যান করেন।

সার্ত্রেকে নোবেল দেয়া হয়েছিল তার কাজের জন্য যা, চিন্তায় সমৃদ্ধ এবং স্বাধীনতার চেতনায় ও সত্যের সন্ধানে পরিপূর্ণ।

জাঁ পল সার্ত্রে ফরাসি দার্শনিক, নাট্যকার, উপন্যাসিক, রাজনৈতিক কর্মী এবং সাহিত্য সমালোচক। ২০ শতকের ফরাসি দর্শন ও মার্ক্সবাদের নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিদের অন্যতম ছিলেন তিনি। তার ‘বিয়িং এন্ড নাথিংনেস’ দর্শনের ইতিহাসে সবচেয়ে প্রভাবশালী বইগুলির একটি।

সূত্র: নোবেল প্রাইজডটঅর্গ

Leave a Reply