‘দ্য বিগ জুবিলি রিড’ হচ্ছে রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের রেকর্ড ব্রেকিং রাজত্বের একটি সাহিত্য উদযাপন। তার শাসনের ৭০ বছর পূর্তিকে(প্লাটিনাম জুবিলি) স্মরণীয় করে রাখার জন্য কমনওয়েলথভুক্ত দেশগুলোর লেখকদের ৭০টি বই বিগ জুবিলি রিড এর জন্য নির্বাচন করা হয়েছে। আর এই তালিকায় বাংলাদেশের মাত্র একজন লেখক স্থান পেয়েছেন।

বিগ জুবিলি রিডে ঠাঁই পাওয়া একমাত্র বাংলাদেশি লেখক হলেন তাহমিমা আনাম। সম্প্রতি বিবিসি এবং দ্য রিডিং এজেন্সি এই তালিকা প্রকাশ করেছে।

৬টি মহাদেশের ৩১ টি দেশের লেখকদের ৭০ টি বই নিয়ে তৈরি করা হয়েছে এই তালিকা। বিশেষজ্ঞদের একটি প্যানেল রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের রাজত্বের প্রতিটি দশক থেকে ১০টি করে মোট ৭০ টি বই বাছাই করেছেন। বইগুলি ১৯৫২ সাল থেকে ২০২১ সালের মধ্যে প্রকাশিত হয়েছে।

বিগ জুবিলি রিডে তাহমিমা আনাম ২০০২ থেকে ২০১১ এর দশকে রয়েছেন। ২০০৭ সালে প্রকাশিত তার ‘অ্যা গোল্ডেন এজ’ বইটি এই তালিকায় স্থান পেয়েছে। বিশ্বের বিখ্যাত সব লেখকদের বই নিয়ে তৈরি এই তালিকায় স্থান পাওয়া একমাত্র বাংলাদেশি লেখক হলেন তিনি।

অ্যা গোল্ডেন এজ তাহমিমা আনামের লেখা প্রথম উপন্যাস। এই বইয়ের জন্য ২০০৮ সালে সেরা প্রথম বই ক্যাটাগরিতে কমনওয়েলথ রাইটার্স প্রাইজ পান তিনি। তার লেখা বইগুলি হলো, দ্য গুড মুসলিম, দ্য বোনস অব গ্রেস, দ্য স্টার্টআপ ওয়াইফ।  

দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর লেখকদের মধ্যে ভারতের ৮ জন, শ্রীলংকার ৩ জন পাকিস্তানের ১ জন এবং বাংলাদেশের ১ জন লেখক বিগ জুবিলি রিডে ঠাঁই পেয়েছেন।  

তবে জে কে রাউলিং এর হ্যারি পটার, টলকিয়েনের দ্য লর্ড অব দ্য রিংস, নোবেলজয়ী ডরিস লেসিং এর দ্য গোল্ডেন নোটবুক বিগ জুবিলি রিডে না থাকায় অনেকেই বিস্মিত হয়েছেন। এমনকি রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথের পছন্দের লেখক ডিক ফ্রান্সিসও স্থান পাননি এই তালিকায়।

উল্লেখ্য, রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ ব্রিটিশ ইতিহাসের সবচেয়ে দীর্ঘ মেয়াদী শাসক। ১৯৫২সালের ৬ ফেব্রুয়ারি তিনি সিংহাসনে আরোহণ করেন। ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে তার শাসনের ৭০ বছর পূর্ণ হয়।

সূত্র: বিবিসি  

Leave a Reply