এনিড ব্লাইটনের লেখা বইগুলোকে বর্ণবাদী এবং জেনোফোবিক বলে উল্লেখ করেছে ইংলিশ হ্যারিটেজ। বিখ্যাত এই শিশু সাহিত্যিকের ভক্তরা এই সংস্থার বিরুদ্ধে টুইটারে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে।

ইংলিশ হ্যারিটেজ যুক্তরাজ্যজুড়ে ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক গুরুত্ব আছে এমন সব ভবন, স্থান দেখভাল করে থাকে। সংস্থাটি ব্লু প্লাক নামে একটি প্রকল্পও পরিচালনা করে থাকে। এই প্রকল্পের আওতায় লন্ডনে গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের ভবনে নীল ফলক স্থাপন করা হয়।

লন্ডন এবং এর আশেপাশের এলাকায় প্রায় ৯৫০টি নীল ফলক স্থাপন করেছে ইংলিশ হ্যারিটেজ। ইতিহাসের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা কোথায় থাকতেন এবং কাজ করতেন দর্শকদের তা দেখানোর জন্যই এই ফলকগুলি স্থাপন করা হয়।

এনিড ব্লাইটনের চেসিংটনের সাবেক বাসস্থানেও ১৯৯৭ সালে এরকম একটি নীল ফলক স্থাপন করা হয়েছিল। এই বাড়িতেই তিনি দ্য ফেমাস ফাইভ এবং দ্য সিক্রেট সেভেন এর মত জনপ্রিয় বইগুলো লিখেছিলেন।

গতবছর এই সংস্থাটি তাদের ওয়েবসাইট আপডেট করার সময় ব্লাইটন সম্বন্ধে নতুন তথ্য যোগ করেছে। তার সাহিত্যকে বর্ণবাদী এবং জেনোফোবিক বলেও উল্লেখ করেছে। মূলত ২০২০ সালের ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার আন্দোলন দ্বারা প্রভাবিত হয়েই এই পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

ইংলিশ হ্যারিটেজের ওয়েবসাইটে লেখা রয়েছে, ব্লাইটনের জীবদ্দশায় তার সাহিত্যকর্মের বিরুদ্ধে বর্ণবাদের অভিযোগ উঠেছিল। এজন্য তিনি সমালোচিতও হয়েছিলেন। এছাড়া ২০১৬ সালে রয়েল মিন্টও তার সম্মানে স্মারক মুদ্রা প্রকাশ করতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিল। উপদেষ্টা কমিটি তাকে বর্ণবাদী, হোমোফোব বলে উল্লেখ করেছিল।

এদিকে বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে থাকা লেখকের ভক্তরা ইংলিশ হ্যারিটেজের এধরনের পদক্ষেপে হতাশা ব্যক্ত করেছেন। বর্তমানের সোশ্যাল স্ট্যান্ডার্ডের ভিত্তিতে ব্লাইটনের চিন্তাভাবনা, দৃষ্টিভঙ্গির বিচার করা ভুল হবে বলে জানিয়েছেন তারা।

বলিউড অভিনেত্রী, চলচ্চিত্র নির্মাতা পূজা ভাট এদের মধ্যে একজন। টুইটারে তিনি লিখেন, ‘এখন এনিড ব্লাইটনের কাজকে জেনোফোবিক বলা হচ্ছে। তার মধ্যে সাহিত্য মেধার অভাব আছে বলেও উল্লেখ করা হচ্ছে। আমার মত লাখ লাখ পাঠকের শৈশবের কল্পনাশক্তিতে ইন্ধন যুগিয়েছে তার বই।’

জ্যানেট এল এলিস লিখেন, ‘এনিড ব্লাইটন বর্ণবাদী….. এরপর কে। এদেশের প্রায় প্রত্যেকেই তার বই পড়ে বড় হয়েছে। বিশ্বজুড়ে ৬০০ মিলিয়ন মানুষ তার বই কিনেছে। আর এখন তারা তাকে বর্ণবাদী বলে বিবেচনা করছে।’

এনিড ব্লাইটন বিখ্যাত শিশু সাহিত্যিক। তিনি বিশ্বের অন্যতম বেস্টসেলার লেখক। তার বইগুলো ৬০০ মিলিয়নের বেশি কপি বিক্রি হয়েছে। প্রায় ৯০টি ভাষায় এগুলো অনূদিত হয়েছে। তার উল্লেখযোগ্য বই হচ্ছে, ফাইভ অন অ্যা ট্রেজার আইল্যান্ড, দ্য ম্যাজিক ফারঅ্যাওয়ে ট্রি, ম্যালোরি টাওয়ার্স, দ্য আইল্যান্ড অব অ্যাডভেঞ্চার, নোবডি গোজ টু টয়ল্যান্ড

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

Leave a Reply