এমিলি ডিকিনসনকে মার্কিন কবিদের মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ একজন কবি মনে করা হয়। বিস্ময়কর হলেও সত্যি জীবদ্দশায় তার মাত্র ১০ টি কবিতা প্রকাশিত হয়েছিল। ১০ ডিসেম্বর ছিল তার ১৯১তম জন্মবার্ষিকী। এই কবির বেশিরভাগ কবিতাই মৃত্যু এবং অমরত্বের ধারণা নিয়ে লেখা হয়েছে।

৫৫ বছরের জীবনে ডিকিনসন প্রায় ১ হাজার ৮ শ’র মত কবিতা লিখেছিলেন। ধারণা করা হয়, মৃত্যু নিয়ে তার ৫ শ’র বেশি কবিতা রয়েছে। মৃত্যুর প্রকৃত রূপ বোঝার আন্তরিক প্রচেষ্টা ছিল এই কবিতাগুলোতে।

নিভৃতচারী এই কবির বেশিরভাগ কবিতা মৃত্যুকেন্দ্রিক, হোক তা অনাহারে, ক্রুশবিদ্ধ হয়ে, পানিতে ডুবে, শ্বাসরোধের মাধ্যমে অথবা গুলিবিদ্ধ হয়ে।

১৮৫০ থেকে ১৮৭৮ সালের মধ্যে ডিকিনসনের ১০ টি কবিতা এবং ১টি চিঠি সংবাদপত্র এবং জার্নালে প্রকাশিত হয়েছিল। কিন্তু তিনি এগুলো প্রকাশের কোন অনুমতি দেননি। এছাড়া এসব কবিতা তার নামেও প্রকাশ করা হয়নি।

এমিলির মৃত্যুর পর ছোট বোন লাভিনিয়া কবির শোবার ঘরে বিপুলসংখ্যক কবিতা আবিষ্কার করেন। তিনি এগুলো প্রকাশের ব্যবস্থাও করেছিলেন। ১৮৯০ সালে প্রতিভাবান এই কবির মৃত্যুর ৪ বছর পর তার প্রথম কবিতা সংকলন প্রকাশিত হয়েছিল।

এই সংকলনের সবগুলো কবিতা ব্যাপকভাবে সম্পাদনা করা হয়েছিল। ১৯৯৮ সালে নিউইয়র্ক টাইমস প্রকাশিত একটি নিবন্ধে বলা হয়, ডিকিনসনের কবিতাগুলো অনেকবার এডিট করা হয়েছিল।

১৯৫৫ সালে থমাস এইচ. জনসন এমিলি ডিকিনসনের কবিতা নিয়ে ‘দ্য পোয়েমস অব এমিলি ডিকিনসন’ নামের বইটি প্রকাশ করেন। এই বইয়ের বেশিরভাগ কবিতাই অপরিবর্তিত ছিল। অর্থাৎ এখানে এমিলির কবিতাগুলো সম্পাদনা না করে অপরিবর্তিত অবস্থায় রাখা হয়েছিল।

আমেরিকার সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ এবং সবচেয়ে মৌলিক কবিদের একজন এমিলি ডিকিনসন। ১৮৩০ সালের ১০ ডিসেম্বর তিনি ম্যাসাচুসেটস রাজ্যের আমহার্স্টে জন্মগ্রহণ করেন। অদ্ভুত স্বভাবের খামখেয়ালী এই কবির জীবন বেশ রহস্যময় ছিল। ১৮৮৬ সালের ১৫ মে তিনি মারা যান।

সূত্র: মেন্টালফ্লস, ফ্যাক্টিনেট

Leave a Reply