রাদিয়া হাফিজা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ লেখক। তার লেখা প্রথম বই ‘রুমেসা: আ ফেইরিটেল’। এই বইয়ে সিন্ডারেলা, রূপাঞ্জেল, স্লিপিং বিউটির মত ক্লাসিক রূপকথার গল্পগুলো নতুনভাবে লিখেছেন তিনি।

লন্ডনে বেড়ে উঠা রাদিয়া ছোটবেলা থেকেই রূপকথার গল্প পড়তে ভালোবাসতেন। স্নো হোয়াইট, লিটল রেড রাইডিং হুড, সিন্ডারেলার স্বপ্নের রাজত্বে হারিয়ে যেতেন তিনি। কয়েক বছর পর এই গল্পগুলোতে তিনি কিছু জিনিসের অনুপস্থিতি উপলব্ধি করতে শুরু করলেন।

বড় হওয়ার সাথে সাথে তিনি বুঝতে পারলেন, সিন্ডারেলা, রূপাঞ্জেলের কেউই তার মত হিজাবী নয়। তাদের পোশাক, গায়ের রঙ, এমনকি নামের সঙ্গেও তার কোন মিল নেই।

তিনি শিশুদের জন্য একটি রূপকথার বই লেখার পরিকল্পনা করলেন। এই বইতে তিনি নিজের বাংলাদেশি ঐতিহ্য এবং মুসলিম পরিচিতি তুলে ধরার সিদ্ধান্ত নিলেন। এরপর তিনি লিখে ফেললেন রুমেসা: আ ফেইরিটেল বইটি।

রাদিয়া বলেন, ‘আমি রূপাঞ্জেলের স্থানে নিজেকে কল্পনা করতে শুরু করলাম। তার মতই একটি দুর্গে আটকা পড়লে কি করতাম তাও ভাবলাম। রূপাঞ্জেল যেমন তার চুল নীচে নামিয়ে দিয়েছিল, তেমনি রুমেসাও তার হিজাব নীচে নামিয়ে দিতে পারে।’

রূপকথার গল্প রূপাঞ্জেলের সবচেয়ে বিখ্যাত লাইন ছিল, ‘রূপাঞ্জেল, রূপাঞ্জেল তোমার চুলগুলো নীচে নামাও’। এই বাক্যটির মতই রাদিয়া লিখলেন, ‘রুমেসা, রুমেসা তোমার হিজাব নীচে নামাও’।

রূপকথার সুপরিচিত এই গল্পকে নিজের সাংস্কৃতিক এবং ধর্মীয় পটভূমিতে নতুন করে লিখেছেন রাদিয়া হাফিজা। এটিকে উল্লেখযোগ্য একটি কাজ বলা যেতে পারে।

রাদিয়া জানান, রূপাঞ্জেলের হিজাবী রূপান্তর নিয়ে মানুষ যে এতটা সাড়া দেবে তিনি তা বুঝতে পারেননি। তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘আমি বেড়ে উঠার সময় যদি এরকম বই পড়তে পেতাম, তাহলে আমার আত্মবিশ্বাস আরো বেড়ে যেতো।’

এদিকে বিগত কয়েক বছর ধরে ব্রিটেনে প্রকাশিত শিশুদের বইয়ে জাতিগত বৈচিত্র্য অনেক বেশি দেখা যাচ্ছে। এটিকে ইতিবাচক বলে মনে করেন রাদিয়া হাফিজা।

রুমেসা: আ ফেইরিটেল বইটি রুমেসা নামের এক মুসলিম তরুণীর গল্প। রূপাঞ্জেলের মত সেও একটি দুর্গে আটকা পড়ে। একদিন সে দুর্গ থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। এরপর সে সিন্ডারেলা এবং স্লিপিং সারাকে মুক্তি পেতে সাহায্য করে।

ক্লাসিক রূপকথার গল্পগুলোতে আমরা দেখি, একজন রাজকুমার এসে নায়িকাকে উদ্ধার করে। কিন্তু রাদিয়া সে পথে যাননি। তিনি নারীর ক্ষমতার উপর বিশ্বাস রেখেছেন। সে কারণে রুমেসা কেবল নিজেকেই মুক্ত করেনি বরং সিন্ডারেলা, স্লিপিং সারাকেও বন্দীদশা থেকে মুক্তি দেয়। ফলে এটিকে একবিংশ শতাব্দীর রূপকথা বলা যেতে পারে।

রুমেসা: আ ফেইরিটেল ২০২১ সালের এপ্রিলে প্রকাশিত হয়।

সূত্র: দ্য ন্যাশনাল

Leave a Reply