‘আলোর ফেরিওয়ালা’ হিসেবে পরিচিত পলান সরকারের জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বই বিনিময় উৎসব। 

সোমবার (১ আগস্ট) কেন্দ্রীয় শহিদ মিনারে বিকেল ৫টায় শুরু হবে ব্যতিক্রমধর্মী এই বইয়ের উৎসব। এটির আয়োজন করছে ‘মেঘের ধাক্কা’ নামের একটি সংগঠন।

মেঘের ধাক্কার পরিচালক জহির রায়হান বলেন, ‘পলান সরকার তার জীবনের সব সহায়-সম্বল বিকিয়ে দিয়ে নিজের জীবনটা শিক্ষার জন্য উৎসর্গ করেছেন। ৯০ বছর বয়সেও তিনি প্রতিদিন দশ-বারো কিলোমিটার হেঁটে মানুষের হাতে বিনামূল্যে বই পৌঁছে দিয়েছেন।’

তিনি জানান, এই উৎসবে যারা আসবেন, তারা যেন বাসা থেকে একটি বই সঙ্গে নিয়ে আসেন। এরপর সেই বইটি অন্য একজনের সঙ্গে বিনিময় করবেন। এভাবেই চলবে বই বিনিময় উৎসব।

উৎসবে যোগদানকারী সবাইকে তাদের শিশু সন্তানদের সঙ্গে নিয়ে আসার জন্য মেঘের ধাক্কার পক্ষ থেকে অনুরোধ করা হয়েছে।

বই বিনিময় ছাড়াও অনুষ্ঠানে পলান সরকারের জীবন, শিক্ষা বিস্তার এবং বর্তমান বৈরী সময়ে প্রাসঙ্গিক পলান সরকার নিয়ে আলোচনা করা হবে।

উল্লেখ্য, পলান সরকার ১৯২১ সালের ১ আগস্ট নাটোরের বাগাতিপাড়া উপজেলার নূরপুর মালঞ্চী গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। বাবা-মা তার নাম রেখেছিলেন হারেজ উদ্দিন সরকার। মাত্র ৬ষ্ঠ শ্রেণী পর্যন্ত পড়ালেখা করেছেন। কিন্তু বইয়ের প্রতি তার ভালোবাসা রয়ে যায়। এজন্যই ফেরিওয়ালার মত হেঁটে হেঁটে বই নিয়ে গ্রামের মানুষদের মধ্যে বিলাতেন তিনি। এভাবেই ‘আলোর ফেরিওয়ালা’ হয়ে ওঠেন।

নিজের টাকায় বই কিনে পাঠকের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিয়ে বই পড়ার আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য তিনি ২০১১ সালে একুশে পদকে ভূষিত হন।

Leave a Reply