আমেরিকার নিউইয়র্কে লেখক সালমান রুশদীকে ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। মার্কিন বার্তা সংস্থা এপি এই খবর প্রকাশ করেছে।

শুক্রবার সকালে পশ্চিম নিউইয়র্কে বক্তৃতা দিতে মঞ্চে উঠার পর হামলার শিকার হন তিনি।

ঘটনাস্থলে উপস্থিত এপির রিপোর্টার জানান, শিটাকুয়া ইনস্টিটিউশনের এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতার জন্য তাকে পরিচয় করিয়ে দেয়া হচ্ছিল। সেসময় মঞ্চে একজন লোক উঠে তাকে ছুরিকাঘাত করে।   

এপির রিপোর্টারের তোলা ছবিতে ৭৫ বছর বয়সি বুকারজয়ী ব্রিটিশ এই লেখককে মঞ্চে পড়ে থাকতে দেখা যায়। ঘটনার পরপরই রুশদীকে সহায়তা করতে অনুষ্ঠানে উপস্থিত লোকজন মঞ্চে ছুটে আসেন।

হামলার পর মঞ্চে পরিচর্যা করা হচ্ছে রুশদীকে

নিউইয়র্ক পুলিশ জানিয়েছে, রুশদীর ঘাড়ে ছুরিকাঘাত করা হয়। এক বিবৃতিতে বলা হয়, তাকে হেলিকপ্টারে করে একটি স্থানীয় হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

হেলিকপ্টারে করে রুশদীকে হাসপাতালে নেয়া হচ্ছে

এদিকে নিউইয়র্ক টাইমসকে একজন চিকিৎসক জানান, তিনি হামলার পরপর শিটাকুয়া ইনস্টিটিউটিশনে সালমান রুশদীকে চিকিৎসা দিয়েছেন। তার শরীরে তিনি কয়েকটি ছুরিকাঘাত দেখেছেন। এর মধ্যে একটি আঘাত ছিল ঘাড়ের ডান দিকে। তিনি আরও বলেছেন, মঞ্চে তার শরীরের নীচে অনেক রক্ত জমে ছিল।

ছুরিকাঘাতে আহত লেখক সালমান রুশদী

রুশদী বেঁচে আছেন এবং তাকে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলে জানান নিউইয়র্ক রাজ্যের গভর্নর ক্যাথি হোকুল। তিনি এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য প্রকাশ করেন।

হামলাকারী পুলিশ হেফাজতে আছেন। তবে হামলার কারণ এখনো জানা যায়নি।

উল্লেখ্য, সালমান রুশদী ভারতীয় বংশোদ্ভূত ব্রিটিশ উপন্যাসিক। ১৯৮৮ সালে প্রকাশিত স্যাটানিক ভার্সেস বইয়ের জন্য মুসলিম বিশ্বে সমালোচিত হন তিনি। তার এই বইটি বিশ্বের বিভিন্ন দেশে নিষিদ্ধও করা হয়। এমনকি তাকে হত্যার জন্য ফতোয়া দিয়েছিলেন ইরানের প্রয়াত নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লাহ খোমেনি।  

Leave a Reply