২০২২ সালের বুকার প্রাইজের জন্য মনোনীত বইয়ের চূড়ান্ত তালিকায় স্থান পেয়েছেন শ্রীলংকান লেখক শেহান করুণাতিলকা। চলতি বছর তিনি ছাড়া আর কোন দক্ষিণ এশিয়ান লেখক এই তালিকায় স্থান পাননি।

মঙ্গলবার (৬ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় লন্ডনে মর্যাদাবান এই পুরস্কারের জন্য মনোনীত বইয়ের তালিকা প্রকাশ করেছে বুকার কর্তৃপক্ষ। এতে শেহান করুণাতিলকার ‘দ্য সেভেন মুনস অব মালি আলমেইদা’ উপন্যাসটিও রয়েছে।

বুকারের চূড়ান্ত তালিকায় স্থান পাওয়া উপন্যাস ‘দ্য সেভেন মুনস অব মালি আলমেইদা’

দ্য সেভেন মুনস অব মালি আলমেইদা বইটি ২০২০ সালে প্রথম প্রকাশিত হয়। উপন্যাসটি শ্রীলংকার গৃহযুদ্ধের পটভূমিতে লেখা হয়েছে। মালি আলমেইদা নামের একজন ফটোগ্রাফারের মৃত্যু পরবর্তী জীবনের কাহিনী স্যাটায়ারের মাধ্যমে বর্ণনা করা হয়েছে।  

শ্রীলংকান লেখক শেহান করুণাতিলকা    

শেহান করুণাতিলকাকে শ্রীলংকার গুরুত্বপূর্ণ একজন লেখক হিসেবে বিবেচনা করা হয়। ৪৭ বছর বয়সি এই লেখক তার লেখা ‘চায়নাম্যান: দ্য লিজেন্ড অব প্রদীপ ম্যাথিউ’ বইটির মাধ্যমে সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন।

কমনওয়েলথ বুক প্রাইজজয়ী উপন্যাস ‘চায়নাম্যান: দ্য লিজেন্ড অব প্রদীপ ম্যাথিউ’

২০১০ সালে প্রকাশিত বইটি তার লেখা প্রথম উপন্যাস ছিল। এতে ক্রিকেটের মাধ্যমে শ্রীলংকার সমাজকে তুলে ধরেছেন তিনি। ২০১২ সালে এটি কমনওয়েলথ বুক প্রাইজ জয় করে।

উপন্যাস ছাড়াও শেহান করুণাতিলকা রক গান, চিত্রনাট্য এবং ভ্রমণ কাহিনী লিখেছেন।

চলতি বছর বুকার প্রাইজের জন্য ১৬৯ টি বই জমা পড়েছিল। বিচারকরা প্রতিটি বই পড়ার পর জুলাই মাসে ১৩টি বইয়ের প্রাথমিক তালিকা প্রকাশ করেন। সেপ্টেম্বরে এই তালিকা থেকে ৬টি বইকে চূড়ান্ত তালিকার জন্য নির্বাচিত করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, বিশ্বে মর্যাদাবান যেসব সাহিত্য পুরস্কার রয়েছে বুকার প্রাইজ তার অন্যতম। ১৯৬৯ সাল থেকে এটি দেয়া হচ্ছে। ইংরেজিতে লেখা এবং যুক্তরাজ্য বা আয়ারল্যান্ডে প্রকাশিত সেরা উপন্যাসের জন্য প্রতি বছর পুরস্কারটি দেয়া হয়। এর আগে সালমান রুশদী, অরুন্ধতী রায়, মার্গারেট অ্যাটউড, হিলারি ম্যান্টেলের মত লেখক বুকার প্রাইজ পেয়েছিলেন।

সূত্র: দ্য গার্ডিয়ান

Leave a Reply